সোমবার, ২২ জানুয়ারি, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |
সর্বশেষ সংবাদ
সিলেটে সুরমায় বাস-ট্রাক সংঘর্ষে ৩ জন নিহত  » «   সিলেট থেকেই নির্বাচনের প্রচার শুরু করবেন হাসিনা  » «   টার্নিং পয়েন্ট খালেদার মামলা  » «   এবার সৌদি-ইসরাইল রেললাইন নির্মাণের পরিকল্পনা চূড়ান্ত  » «   ভারতীয় স্কুলগুলোতে কোরআন শিক্ষার তাগিদ দিলেন মানেকা গান্ধী  » «   প্রত্যাশিত দেশ গড়তে চাই কাঙ্খিত নেতৃত্ব : শিবির সেক্রেটারি  » «   ঢাবি সিনেটে বিএনপিপন্থীদের ভরাডুবির কারন ফাঁস !  » «   সিলেটের আবাসিক হোটেল থেকে তরুণ-তরুণীর লাশ উদ্ধার  » «   ফ্রান্সে প্রথম বাংলাদেশি কাউন্সিলর শারমিন  » «   কবে, কে হচ্ছেন ২২তম প্রধান বিচারপতি?  » «   যে ছবি নিয়ে বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কে বিতর্কের ঝড়  » «   শিক্ষামন্ত্রণালয়ের ‘নিখোঁজ’ দুই কর্মকর্তাসহ তিনজন গ্রেফতার  » «   এবার হজে যেতে পারবেন ১ লাখ ২৭ হাজার বাংলাদেশি  » «   এমপিপুত্রের শেষ স্ট্যাটাস ‘তোর জন্য চিঠির দিন..’  » «   নেতানিয়াহুর গ্রেফতার দাবিতে ইসরাইলে লাখো জনতার বিক্ষোভ  » «  

সম্ভাবনার অপর নাম তথ্যপ্রযুক্তি

imgresদিলীপ কুমার আগরওয়ালা: আজকের যুগ তথ্যপ্রযুক্তির যুগ। এই যুগে দেশ ও জাতিকে অগ্রসর বিশ্বের সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হলে তথ্যপ্রযুক্তির ক্ষেত্রে সামর্থ্যরে পরিচয় দিতে হবে। এর অন্যথা হলে আমাদের জাতিগতভাবে পিছিয়ে পড়তে হবে। অর্থনৈতিকভাবে অর্জিত হবে না কাক্সিক্ষত সাফল্য। কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রেও দেখা দেবে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া। তথ্যপ্রযুক্তি ও উন্নয়ন একবিংশ শতাব্দীর বাস্তবতায় সমার্থক শব্দ হিসেবে বিবেচিত হওয়ায় বর্তমান সরকার এ ক্ষেত্রে দেশের সক্ষমতা গড়ে তোলাকে অগ্রাধিকার দিয়েছে। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশের সাফল্য উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ্যে অনুসরণীয় বলে বিবেচিত হচ্ছে। তথ্যপ্রযুক্তিকে দেশ গড়ার হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহারের জন্য দেশে হাইটেক পার্ক গড়ে তোলা হয়েছে। চলছে আরো একডজন হাইটেক পার্ক তৈরির প্রক্রিয়া।

খুশির বিষয় হচ্ছে প্রতিযোগিতার দৌড়ে বাংলাদেশের তৈরি তথ্যপ্রযুক্তির সরঞ্জাম ও উপকরণ বিদেশের বাজারে বড় ধরনের জায়গা করে নিয়েছে। এর মধ্যে সফটওয়্যার রফতানি করে এক বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বেশি আয় করেছে দেশ। আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) এক শতাংশ আসবে তথ্যপ্রযুক্তির খাত থেকে। প্রতি বছর ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা এক কোটি বাড়বে।
বর্তমানে দেশে ৯ শ’ থেকে এক হাজার কোম্পানি সফটওয়্যার তৈরি করছে। এই শিল্পে কর্মরত রয়েছেন ২৫ থেকে ৩০ হাজার তথ্যপ্রযুক্তিবিদ। আগামী বছরের শেষ নাগাদ সফটওয়্যার শিল্পে এক লাখের বেশি তথ্যপ্রযুক্তিবিদ কাজ করবেন।
সারা দেশে ৫৩ হাজার ডিজিটাল সেন্টার স্থাপন করা হয়েছে। এর মাধ্যমে সাধারণ মানুষ সহজেই সরকারি সব সেবা নিতে পারছেন। জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন, ভূমি রেকর্ড, পরীক্ষার ফল, সরকারি বিভিন্ন ফরম, মোবাইল ব্যাংকিং, জীবন বীমা, ইংরেজি শিক্ষা, স্বাস্থ্য পরামর্শ ডিজিটাল হয়েছে।
বাংলাদেশে তথ্যপ্রযুক্তির উন্নয়নে আমরা সব সময় যথাসময়ে যথাপদক্ষেপ নিতে পারিনি সত্য। তবুও বাংলাদেশে অপরিহার্যভাবেই প্রযুক্তির চর্চা থেমে থাকেনি। এখন প্রতিটি শিল্পে ডিজিটাল প্রযুক্তির পদচারণা শুরু হয়ে গেছে। ব্যাংক খাত এখন অনেকটাই অনলাইন প্রযুক্তিনির্ভর। তথ্যপ্রযুক্তির ছোঁয়া লেগেছে করপোরেট হাউজগুলোয়ও।
তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বাংলাদেশ প্রতিবেশী ভারতের সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অনেক দূর এগিয়েছে। ‘রূপকল্প-২০২১ ডিজিটাল বাংলাদেশ’ গড়ার কাজ দ্রুত করার লক্ষ্যে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা বড় বেশি প্রয়োজন। বাংলাদেশের জনশক্তি এ খাতে দক্ষতার পরিচয় দেবে এমন প্রত্যাশা জাগে তাদের বর্তমান কার্যক্রমে। রাজধানী ঢাকার অদূরে গাজীপুরে গড়ে তোলা হচ্ছে হাইটেক পার্ক। উচ্চতর ডিগ্রি নিতে আগ্রহী সাধারণ শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার জন্য এখানে থাকছে দেশের প্রথম পূর্ণাঙ্গ ডিজিটাল বিশ্ববিদ্যালয়। অর্ধশতাধিক একর জমির ওপর গড়ে তোলা হচ্ছে এ বিশ্ববিদ্যালয়। এটি হবে বিশ্বমানের। বন্দরনগরী চট্টগ্রামেও গড়ে তোলা হচ্ছে আরেকটি হাইটেক পার্ক। পাশাপাশি চট্টগ্রামকে করা হচ্ছে পূর্ণাঙ্গ ডিজিটাল নগরী। হাইটেক পার্ককে কেন্দ্র করে বদলে যাবে দেশের আইটি সেক্টর। এতে সম্ভাবনার নতুন দুয়ার খুলতে শুরু হয়েছে আইটি সেক্টরে। তথা দেশের অর্থনীতিতে বড় ধরনের আরেকটি বৈদেশিক মুদ্রা আয়ের উৎস উঁকি দিচ্ছে। সৃষ্টি হবে হাইটেক পার্ককেন্দ্রিক মানুষের কর্মসংস্থানের। দেশের সাধারণ মানুষের প্রত্যাশিত আইসিটি পার্ক (হাইটেক পার্ক) বাস্তবায়ন হতে যাচ্ছে। আর এতে বর্তমান সরকার আরেকটি সম্ভাবনার দুয়ার উন্মোচন করতে যাচ্ছে। এর ফলে উজ্জ্বল সম্ভাবনার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ।
হাইটেক পার্ক নির্মাণের ফলে সারা দেশের সাধারণ মানুষের দৈনন্দিন আইটি-নির্ভর কাজকর্ম সমাধা করা যাবে। এতে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড ও জীবিকার ধারা বদলাবে, যা অর্থনীতিতে সরাসরি ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে।

লেখক : সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি;
পরিচালক, এফবিসিসিআই

 

– See more at: http://www.dailynayadiganta.com/detail/news/151080#sthash.bL5BqHEQ.dpuf

সংবাদটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ সংবাদ