শুক্রবার, ১৯ জানুয়ারি, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |
সর্বশেষ সংবাদ
নারী ধূমপায়ীদের তালিকায় বাংলাদেশ এখন শীর্ষে  » «   এবার বনানী থেকে শিক্ষা কর্মকর্তা নিখোঁজ  » «   মানুষ অবৈধ শাসকগোষ্ঠীর নির্মম শিকলে বন্দী: খালেদা জিয়া  » «   আসামে বাংলাভাষী বিতাড়নের প্রতিবাদে বিক্ষোভ  » «   ইসরাইলী সেনার গুলিতে ১ ফিলিস্তিনী নিহত  » «   তীব্র সমালোচনার মুখে ছবিগুলো সরিয়ে নিলো ভারতীয় দূতাবাস  » «   নারায়ণগঞ্জে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বঙ্গবন্ধু সড়কে হকাররা  » «   আমরা লজ্জা পাচ্ছি, তারা কি পাচ্ছেন একটুও: আসিফ নজরুল  » «   সিলেটে অর্থমন্ত্রীর গাড়ি চাপায় আহত ২০  » «   জিয়ার মাজারের খালেদা জিয়ার শ্রদ্ধা নিবেদন  » «   সিলেট-লন্ডন ফ্লাইট চালু করতে ৪৫০ কোটি টাকার প্রকল্প  » «   মেয়র আইভী সিসিইউতে  » «   সুষ্ঠু নির্বাচন হলে ৮০ ভাগ মানুষ বিএনপিকে ভোট দিবে: মির্জা ফখরুল  » «   মুসলমানদের সঙ্গে প্রতারণা করছে সৌদি আরব: খামেনি  » «   বাবার লাশ নিয়ে এক তরুণের বাড়ি যাওয়ার মর্মান্তিক বর্ণনা  » «  

ভারতকে হারালো বাংলাদেশ

t90মেয়েদের ফুটবলে বিশ্ব র‍্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের অবস্থান ১০০, ভারতের ৫৭। কিন্তু বয়সভিত্তিক ফুটবলে র‍্যাঙ্কিংটা যে কয়েকটা সংখ্যা ছাড়া আর কিছুই না, সেটি প্রমাণ করেছে বাংলাদেশ। অনূর্ধ্ব-১৫ সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে ভারতকে দাঁড়াতেই দেয়নি বাংলাদেশ। তুলে নিয়েছে ৩-০ গোলের জয়। বাংলাদেশের পক্ষে গোল তিনটি করেছে আনুচিং মারমা, শামসুন্নাহার ও মনিকা চাকমা।

পুরো ম্যাচেই একচ্ছত্র আধিপত্য নিয়ে খেলেছে বাংলাদেশের মেয়েরা। স্কোরলাইনটা তাই সঠিক তথ্যটা দিচ্ছে না। ম্যাচটা যদি বাংলাদেশ ৫-৬ গোলে জয় পেত, তাহলে অবাক হওয়ার থাকত না কিছুই।

মাঠের ফুটবলের সব বিভাগেই ভারতের চেয়ে এগিয়ে ছিল বাংলাদেশ। শারীরিক যোগ্যতা, বলের নিয়ন্ত্রণ,গতি, পারস্পরিক বোঝাপড়া—সবকিছুতেই। আগের ম্যাচে নেপালের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করা ভারতীয় প্রিয়াঙ্কা দেবিকে আজ শুধু মাঠময় দৌড়ঝাঁপ করতেই দেখা গেল। উল্টো দিকে বাংলাদেশের মেয়েরা প্রত্যেকেই ছিল স্বমহিমায় উজ্জ্বল।

শুরু থেকে বেশ কয়েকটি গোলের সুযোগ নষ্ট করেছে বাংলাদেশ। প্রথমার্ধের মাঝামাঝি সময়ে সাজেদা খাতুন চোটে পড়লে মাঠে নামে আনুচিং। পাহাড়ি এই মেয়েটি মাঠে নামতেই ভোজবাজির মতো পাল্টে যায় বাংলাদেশের ফরোয়ার্ড লাইন। ৩২ মিনিটে আনুচিংয়ের গোলেই এগিয়ে যায় বাংলাদেশ। মনিকা চাকমার কর্নার থেকে হেডে গোলটি করে আনুচিং। বিরতিতে যাওয়ার আগেই পেনাল্টি থেকে ব্যবধান দ্বিগুণ করে শামসুন্নাহার। ২-০ গোলে এগিয়ে থেকে ম্যাচের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ হাতে নিয়েই বিরতিতে যায় গোলাম রব্বানি ছোটনের দল।

বিরতি থেকে ফিরেই ৫৪ মিনিটে মনিকার প্রায় একক প্রচেষ্টায় গোল করে স্কোরলাইন ৩-০ করেন। আনাইয়ের কাছ থেকে পাওয়া বলটি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে বক্স ঢুকে দেখে শুনে প্লেসিং। তাঁকে দেখে মনে হলো গোল করা যেন কত সোজা।

আজকের এই জয়ে বয়সভিত্তিক মেয়েদের ফুটবলে ভারতের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক জয় পেল বাংলাদেশ। এর আগে ২০১৫ সালে তাজিকিস্তানে অনুষ্ঠিত এএফসি অনূর্ধ্ব-১৪ আঞ্চলিক চ্যাম্পিয়নশিপে গ্রুপ পর্বে ভারতকে ৩-১ গোলে আর ফাইনালে ৪-০ গোলে হারিয়েছিল বাংলাদেশ।

গ্রুপ পর্বের ম্যাচ শেষ। এবার ফাইনালের পালা। এক ম্যাচ হাতে রেখে আগেই ফাইনাল নিশ্চিত করেছিল দুই দলই। ২৪ ডিসেম্বর হবে ফাইনাল। তার আগে ভারতকে উড়িয়ে কিন্তু আত্মবিশ্বাসটা ভালোভাবেই বাড়িয়ে নিল বাংলাদেশের মেয়েরা।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ সংবাদ