সোমবার, ২২ জানুয়ারি, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |
সর্বশেষ সংবাদ
সিলেটে সুরমায় বাস-ট্রাক সংঘর্ষে ৩ জন নিহত  » «   সিলেট থেকেই নির্বাচনের প্রচার শুরু করবেন হাসিনা  » «   টার্নিং পয়েন্ট খালেদার মামলা  » «   এবার সৌদি-ইসরাইল রেললাইন নির্মাণের পরিকল্পনা চূড়ান্ত  » «   ভারতীয় স্কুলগুলোতে কোরআন শিক্ষার তাগিদ দিলেন মানেকা গান্ধী  » «   প্রত্যাশিত দেশ গড়তে চাই কাঙ্খিত নেতৃত্ব : শিবির সেক্রেটারি  » «   ঢাবি সিনেটে বিএনপিপন্থীদের ভরাডুবির কারন ফাঁস !  » «   সিলেটের আবাসিক হোটেল থেকে তরুণ-তরুণীর লাশ উদ্ধার  » «   ফ্রান্সে প্রথম বাংলাদেশি কাউন্সিলর শারমিন  » «   কবে, কে হচ্ছেন ২২তম প্রধান বিচারপতি?  » «   যে ছবি নিয়ে বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কে বিতর্কের ঝড়  » «   শিক্ষামন্ত্রণালয়ের ‘নিখোঁজ’ দুই কর্মকর্তাসহ তিনজন গ্রেফতার  » «   এবার হজে যেতে পারবেন ১ লাখ ২৭ হাজার বাংলাদেশি  » «   এমপিপুত্রের শেষ স্ট্যাটাস ‘তোর জন্য চিঠির দিন..’  » «   নেতানিয়াহুর গ্রেফতার দাবিতে ইসরাইলে লাখো জনতার বিক্ষোভ  » «  

এই কেমন রাজনৈতিক দল জামায়াতে ইসলামী?

26730846_10210830560453271_2160208979035142598_n… আমি গ্রেপ্তার হলাম থানায় যেতে না যেতে আমার জন্যে রাতের খাওয়ার হাজির। ভাবতাছি আমার পরিবার জানেনা আমি যে গ্রেপ্তার হলাম খাওয়া আসলো কোত্থেকে? পরের দিন ফজর নামাজ শেষ হতে না হতে নাস্তা হাজির!

সকাল ১০ বাজে আমাকে আদালতে চালান দিলো। থানা থেকে বের হতে দেখি একজন ভাই আমাকে কাপড় দিয়ে বলে এইটা আপনার জন্যে অমুক পাঠিয়েছে।
আদালতে পৌঁছার আগে দেখি জামায়াত ইসলামী জেলা থানা নেতারা হাজির। আদালতের লকাবে ডুকতেই দুপুরের খাদ্য হাজির।

সন্ধায় আমাকে কারাগারে পাঠায়। রাত আমাকে কাটাতে হলো কারাগারের আমদানিতে। ফজর নামাজের পরে কিছু যুবক আমার জন্যে নিয়ে আসে সকালের নাস্তা। পরিচয় জানতে চাইলে তারা বলে শিবির ওয়ার্ডের দায়িত্বশীল।

সকাল ১০ টায় তাদের সাথে গেলাম শিবির ওয়ার্ডে। ওয়ার্ডে ডুকতেই অপরিচিত কিছু লোক আপনজন মত কোলাকুলি শুরু করে দিলো। পরে পরিচয় হলো ওরাও আমার মত নির্যাতিত মজলুম।

দুপুরের পুর্বে গোসল করতে গেলাম এক ভাই আমার জন্যে পানি নিয়ে আসে আরেকজন গামছা লুঙী নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে। গোসল করার পরে আমার লুঙী ধুয়ে দিচ্ছে এক ভাই। আমার লুঙ্গি আমি ধুইতে চাইলেও ওরা আমাকে দেইনি ধুইতে। পরে জানতে পারি ওরা সবাই ইসলামী ছাত্রশিবির কর্মী।

গোসল শেষে যখন ওয়ার্ডে যাই তখন ওদের আচারণ দেখে চোখের কোণায় জল আসে যায়।

আমি গোসল করে যখন ওয়ার্ডে যাই তখন কেন্দ্রীয় দায়িত্বশীল নিজের বিছানা ছেড়ে দিয়ে বলে আপনি ক্লান্ত এখন বিশ্রাম করুণ।

আমি বিছানায় শুয়ে শুয়ে ভাবতাছি আমার মত নগণ্য এক আল্লাহর গোলাম কে ওরা যেই আন্তরিকতা ও ভালোবাসা দেখাইতাছে তা কিন্তু আমি পাপ্য নয়।
জোহর নামাজের আজান শুনে আমি বিছানা থেকে উঠে ওজু করতে গেলে মহানগর শিবির নেতা আমার জন্যে ওজুর পানি নিয়ে অপেক্ষা করছে!!

নামাজ শেষে দু’নয়ণে পানি ঝরছে ওদের আন্তরিকতা দেখে। আল্লাহর কাছে দু’হাত তুলে ফরিয়াদ করলাম। ওহে মহান রব জামায়াত /শিবির আমার সাথে যেই আচারণ করছে এতে আমি মুগ্ধ তুমিও ওদের উপর রাজি হয়ে যাও। তুমি যদি জামায়াত শিবির কে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা দান কর অবশ্যই এই দেশের ভাগ্য পরিবর্তন হবে বলে আমি মনে করি।

মুনাজাত শেষে দুপুরের খাওয়ার আয়োজন। এক ভাই ভাতের প্লেট ধুয়ে আমাকে ভাত তরকারি নিয়ে দিলো। আমার পাশে বসা আরেকজন একটি ডিম আমার প্লেটে তুলে দিলো। আরেকজন দিলো আলুর ভর্তা আমার প্লেটে তরকারি ভরা ওদের প্লেটে দেখি সামান্য তরকারি।

এমন অবস্থা দেখে আমি ওদের বলি আপনারা সামান্য তরকারী দিয়ে কিভাবে ভাত খাবেন? সব আমাকে কেন দিচ্ছেন? তাদের উত্তর শুনেও চোখের পানি ধরে রাখতে পারলামনা! এই কেমন কর্মী বাহিনী জামায়াত শিবির জন্ম দিলো!!
(এক ভাইয়ের ওয়াল হতে)

AP Alauddin Al Azad

সংবাদটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ সংবাদ