বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ ফাল্গুন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |
সর্বশেষ সংবাদ
শেখ হাসিনার ‘ফটোজেনিক মেধাবী’ জিনিসটি আসলে কী?  » «   সর্বস্তরে বাংলা ভাষা চালু করতে হবে : শিবির সভাপতি  » «   খালেদার বক্তব্য বিকৃত করে রায় দিয়েছেন আখতারুজ্জামান!  » «   একজন ভাষাসৈনিক গোলাম আজম এবং আমার ভাবনা  » «   আগামী বছর নতুন পদ্ধতিতে এসএসসি  » «   ধনীদের আরো বেশি কর দেয়া উচিত: বিল গেটস  » «   খালেদা ভোটের যোগ্যতা হারালে কিছু করার নেই: কাদের  » «   তারেকের স্ত্রী, কন্যার ব্রিটিশ নাগরিকত্বের আবেদনের খবর  » «   খালেদার জামিন আবেদনের আগেই কপি চান অ্যাটর্নি জেনারেল  » «   ব্যাংকে জালিয়াতির কোনো ঘটনায় ছাড় দেয়া হয়নি: তোফায়েল  » «   বাংলাদেশকে কেউ আর অবহেলার সাহস পায় না: প্রধানমন্ত্রী  » «   বাসের ধাক্কায় ৪ অটোযাত্রী নিহত  » «   ২১ গুণীজনকে একুশে পদক দিলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   ভারতের দুর্ভাগ্য যে বিজেপি কেন্দ্রীয় সরকারে ক্ষমতায় আছে: মমতা  » «   খালেদা জিয়ার আপিল গ্রহণের শুনানি বৃহস্পতিবার  » «  

তীব্র সমালোচনার মুখে ছবিগুলো সরিয়ে নিলো ভারতীয় দূতাবাস

1516337678

শীর্ষনিউজ ডেস্ক: ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জিকে চেয়ারে বসিয়ে বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বর্তমান মন্ত্রীদেরকে দাঁড় করিয়ে রেখে তোলা ছবিগুলো ফেসবুকে নিজেদের পেইজে পোস্ট করিয়েছিলো ভারতীয় দূতাবাস।
কিন্তু ফেসবুকে এসব ছবি নিয়ে তীব্র সমালোচনা হয়। ফলে অবশেষে ভারতীয় দূতাবাস সেগুলো তাদের পেইজ থেকে সরিয়ে নিয়েছে।
উল্লেখ্য, প্রণব মুখার্জিকে নিয়ে এমনিতেই বাংলাদেশের মানুষের মধ্যে মিশ্র মনোভাব রয়েছে। অনেকেই মনে করেন, বাংলাদেশের গত কয়েক বছরের রাজনৈতিক সংকট এবং বর্তমান পরিস্থিতির জন্য প্রণব মুখার্জিই অনেকাংশে দায়ী। তিনি বর্তমানে ভারতের সরকারি পদবিধারী কেউ নন। গত বছরের ২৭ জুলাই রাষ্ট্রপতি পদে মেয়াদ শেষ হওয়ার পর থেকে তিনি অবসর জীবন-যাপন করছেন। সেই ‘সাবেক’ রাষ্ট্রপতির বসা অবস্থায় পেছনে দাঁড়ানো বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রপ্রতি এবং বর্তমান মন্ত্রীদের ছবি পেইজবুকে প্রকাশ হওয়ার পর তীব্র সমালোচনা শুরু হয়। অবশেষে বৃহস্পতিবার রাত ১০টায় ঢুকে হাইকমিশনের ফেসবুক পেইজে ছবিগুলো দেখা যায়নি। তবে সেখানে এক পাঠকের শেয়ার করা ছবি ও তাদের সমালোচনামূলক কমেন্ট পাওয়া গেছে।
তাতে সুহাসিনী উদ্ভাসন নামের ওই পাঠক লিখেছেন–
“ছিৃছিৃ! বাংলাদেশ কোথায় যাচ্ছেৃ?
হুসাইন মোহাম্মদ এরশাদ নয় পেছনে দণ্ডায়মান বাংলাদেশের সাবেক প্রেসিডেন্ট। প্রনব মূখার্জী যখন ভারতের অর্থমন্ত্রী (১৯৮২-৮৪) হুসাইন মোহাম্মদ এরশাদ তখন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি। তাছাড়া বয়সেও প্রনব মূখার্জী তাঁর থেকে ৫ বছরের ছোট। রীতিবদ্ধভাবে, একজন সাবেক রাষ্ট্রপতির সাথে আরেক সাবেক রাষ্ট্রপতি দেখা করতে গেলে যেরকম প্রটোকল দেখানো উচিত সেই সৌজন্যতাও ভারতীয় দূতাবাস দেখায়নি । অন্তত এরশাদ সাহেবের জন্য আরো একটি চেয়ার দিয়ে, সমতা দেখানো উচিত ছিল। উল্লেখ্য, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বলিষ্ঠ নেতৃত্বে মহান মুক্তিযুদ্ধে লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত এই স্বাধীন বাংলাদেশ, কারো দানের নয়। ভারতীয় হাইকমিশনের এই ঘৃণ্য প্রটোকল স্পর্ধা প্রদর্শন এবং পেছনের সারিতে এরশাদ সাহেবের ফুলকিত অবয়ব, বাংলাদেশী নাগরিক হিসেবে আমি হতভম্ব। আমার কাছে মনে হয়েছে, পেছনে দণ্ডায়মান একটি মেরুদ-হীন বাংলাদেশ, এতে রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশের মর্যাদা ক্ষুন্ন হয়েছে। সর্বোপরি, লজ্জিত বাংলাদেশ এ ছবিতে !! আপনারা কি বলেন?”

সংবাদটি শেয়ার করুন:

সর্বশেষ সংবাদ